অবসর নেওয়া প্রসঙ্গে যা বললেন নরেন্দ্র মোদি

Img
ফাইল ছবি

ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি বলেছেন, ‘‌আমাকে বিরোধী দলের এক নেতা বলেছেন, আপনি দু’বার প্রধানমন্ত্রী পদে মনোনীত হয়েছেন, এরপর আর কী চান? আসলে ওই বিরোধী নেতার মনোভাব হল, দু’বার প্রধানমন্ত্রী হলেই সব চাহিদার সমাপ্তি ঘটে যায়। কিন্তু আমি সেই প্রকৃতির মানুষ নই। সমস্ত জনস্বার্থবাহী প্রকল্প যতক্ষণ না ১০০ শতাংশ বাস্তবায়িত হচ্ছে, ততক্ষণ বিশ্রাম নেব না।’‌

শনিবার (১৪ মে ) গুজরাটের ‘উৎকর্ষ সমারোহ’ অনুষ্ঠানে ভিডিও কনফারেন্সে তিনি এসব কথা বলেন। খবর হিন্দুস্তান টাইমসের।

খবরে বলা হয়, ওই মন্তব্যের পরই তিনি প্রধানমন্ত্রী থাকতে চান তা স্পষ্ট হয়ে ওঠে। হিন্দুস্তান টাইমসের খবরে বলা হয়, আগামী ২০২৪ সালে প্রধানমন্ত্রীর বয়স হবে ৭৩ বছর। আর দেখা যাচ্ছে, কেন্দ্র–রাজ্য বিভিন্ন সিনিয়র, প্রবীণ বিজেপি নেতাকে প্রত্যক্ষ রাজনীতি থেকে সন্ন্যাস দেওয়া হয়েছে। কেউ চলে গিয়েছেন বানপ্রস্থে। কেউ রাজ্যপাল হয়েছেন।

সেখানে নরেন্দ্র মোদী নিজেই বার্তা দিলেন, ২০২৪ সালে বিজেপি জয়ী হলে প্রধানমন্ত্রী হবেন তিনিই। অর্থাৎ ২০২৯ সাল পর্যন্ত তিনি প্রধানমন্ত্রীর পদে থাকবেন। তখন তার বয়স হবে ৭৮ বছর! স্বাধীন ভারতে তিনবার টানা প্রধানমন্ত্রী হয়েছেন একমাত্র জওহরললাল নেহরু।

পূর্ববর্তী সংবাদ

ঢাকা ও আইডিয়াল কলেজের শিক্ষার্থীদের মধ্যে সংঘর্ষ

ঢাকা কলেজ ও নিউমার্কেট দোকানকর্মীদের সংঘর্ষের এক মাস পার হয়নি এখনো; ফের সংঘর্ষে জড়িয়েছে ঢাকা কলেজের শিক্ষার্থীরা। এবার ঢাকা ও আইডিয়াল কলেজের শিক্ষার্থীদের মধ্যে মারামারির ঘটনা ঘটেছে।

শনিবার (১৪ মে ) বেলা ১১টার দিকে সায়েন্স ল্যাব মোড়ে এ ঘটনা ঘটে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

নিউমার্কেট থানার ডিউটি অফিসার উপ-পরিদর্শক (এসআই) পাভেল, আমাদের থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাসহ (ওসি) ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা ঘটনাস্থলে উপস্থিত রয়েছেন। পরিস্থিতি এখন নিয়ন্ত্রণে। মেয়েবন্ধুকে টিজ করাকে কেন্দ্র করেই নাকি এ সংঘর্ষ শুরু হয় বলে জানিয়েছে একটি সূত্র। তবে এ তথ্যের সত্যতা নিশ্চিত করা যায়নি।

এ বিষয়ে সাকিব নামের ঢাকা কলেজের শিক্ষার্থী জানান, বৃহস্পতিবার আইডিয়াল কলেজের এক শিক্ষার্থী তার মেয়েবন্ধুকে সঙ্গে নিয়ে যাওয়ার সময় ঢাকা কলেজের শিক্ষার্থীরা টিজ করে। সেই সূত্র ধরে আজ সংঘর্ষ বাধে।

ঢাকা কলেজ শিক্ষার্থী সাব্বির হোসেন বলেন, কী নিয়ে ঘটনার সূত্রপাত, তা সুনির্দিষ্টভাবে বলা যাচ্ছে না। ধারণা করা হচ্ছে, পূর্ব বিরোধের জেরে এ ঘটনা ঘটতে পারে। পরিস্থিতি এখনো উত্তপ্ত রয়েছে বলে জানিয়েছেন ঢাকা কলেজের শৃঙ্খলা কমিটির সদস্য সহকারী অধ্যাপক আলতাফ হোসেন।

তিনি বলেন, ‘আমরা আমাদের শিক্ষার্থীদের সরিয়ে এনেছি। তবে পরিস্থিতি এখনো উত্তপ্ত। আইডিয়াল কলেজের শিক্ষকরা তাদের ছাত্রদের সরিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করছেন।’ সংঘর্ষের বিষয়ে ঢাকা কলেজের অধ্যক্ষ (ভারপ্রাপ্ত) প্রফেসর এ টি এম মইনুল হোসেন বলেন, ‘দুই কলেজের শিক্ষার্থীদের মধ্যে ঝামেলা হয়েছিল। আমি শিক্ষকদের পাঠিয়েছি। শিক্ষার্থীরা সরে এসেছে। এখন পরিস্থিতি শান্ত।’

নিউমার্কেট থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) স ম কাইয়ুম বলেন, পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে এসেছে। শিক্ষার্থীরা রাস্তা ছেড়ে চলে গেছেন। রাস্তায় এখন যান চলাচল স্বাভাবিক রয়েছে। তবে শিক্ষার্থীদের মধ্যে কী নিয়ে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে তা এখনো স্পষ্ট নয়।

প্রতিক্রিয়া মন্তব্য শেয়ার