অদৃশ্য: এম.শাখাওয়াত হোসেন

লেখক: অতিরিক্ত উপ পুলিশ কমিশনার (গুলশান বিভাগ) ডিএমপি।

Img
এম শাখাওয়াত হোসেন।

তোমাকে স্বপ্ন দেখেছিলাম-

তুমি আড়ালেই রয়ে গেলে,তুমি অধরাই থেকে গেলে...!
তোমাকে পাওয়ার যোগ্যতা সম্ভবত আমার ছিল,
তুমি দৃশ্যপটে বেশ কয়েকবার এসেও ছিলে;
কিন্তু বাস্ততার অবর্ণনীয় নির্মমতায়, 
আমি আজ প্রায় বিলীন হয়ে গেছি...!

তোমাকে পাওয়ার জন্য আমি আজও ব্যাকুল,
তোমাকে পাওয়ার নেশায় আমি আজও জাগ্রত ;
কিন্তু বিধি বাম..
হালকা দমকা হাওয়ায় সবকিছু উলোট পালোট হয়ে গেছে..।
বেঁচে থাকার আকুতি মিনতি বড়ই অসহায় করে তুলেছে আমাকে।
আমি আর আগের মত হাসতে পারিনা, কাঁদতেও পারিনা,
নিস্তব্ধতায় চারদিক কেন যেন আমাকে আচ্ছন্ন করে রেখেছে. ...!

ক্রমশই: আমার ছোট্ট পৃথিবীটা সংকুচিত হয়ে যাচ্ছে;
আমি বাঁচতে চাই অধরা, তোমাকে ছাড়াই....
আমি তোমাকে চেয়েছিলাম কিন্তু পাইনি;
আমার হৃদয়ের রক্তক্ষরণ তুমি দূর থেকেই শুধু চেয়ে চেয়ে  দেখলে,
সহমর্মিতা কিংবা সহানুভূতি দেখাতে তোমাকে কখনো  আমি বলিনি;
আমার কল্পিত রুপরেখার ব্যবচ্ছেদে-- 
আমি আজ বড়ই ক্লান্ত....!

পূর্ববর্তী সংবাদ

শাহজাদপুরে সিএনজিকে বাঁচাতে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে বাস খাদে

সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুর উপজেলার টেটিয়ারকান্দা আলিফ সিনএনজি পাম্পের সামনে বগুড়া-নগরবাড়ি মহাসড়কে সিলেট থেকে ছেড়ে আসা পাবনাগামী সি-লাইন ( ঢাকা মেট্টো-ব ১৪৯৭৯৩) যাত্রীবাহী বাস নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে খাদে পড়ে যায়।

প্রত্যক্ষ দর্শীরা জানায়, শনিবার বিকেলে দ্রত গতিতে যাত্রীবাহি বাসটি পাবনার উদ্দেশ্যে যাওয়ার সময় হঠাৎ একটা সিএনজি রাস্তা পাড় হওয়ার জন্য বাসের সামনে চলে আসে। এতে সি - লাইন কোচের ড্রাইবার শক্ত ব্রেক কষলে বাসটি নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে খাদে পড়ে যায়। এ ঘটনায় কমপক্ষে ৬ জন যাত্রী আহত হয়েছে।

দুর্ঘটনার পরপরই এলাকাবাসী ও স্থানীয় দমকল বাহিনীর কর্মীরা দ্রুত ঘটনাস্থলে গিয়ে বাসের ভিতর আটকে পড়া যাত্রীদের উদ্ধার করে।

এলাকাবাসীর অভিযোগ, মহাসড়কে সিএনজি টেম্পুর চলাচলের ওপর নিষেধাজ্ঞা থাকা সত্বেও প্রতিনিয়ত অসংখ্য সিএনটি টেম্পু বগুড়া-নগরবাড়ী মহাসড়কের শাহজাদপুর থেকে উল্লাপাড়া পর্যন্ত অংশে বেপোরোয়া ভাবে চলাচল করায় প্রায়শই সড়ক দুর্ঘটনা ঘটছে। এতে সাধারণ যাত্রী ও পরিবহন মালিকদের অপূরণীয় ক্ষয়ক্ষতি হচ্ছে।

প্রতিক্রিয়া মন্তব্য শেয়ার