প্রচ্ছদ | প্রবাস | যুক্তরাজ্য | মন্তব্যের জন্য টিউলিপের দুঃখ প্রকাশ

মন্তব্যের জন্য টিউলিপের দুঃখ প্রকাশ

image

লন্ডনে এক সমাবেশে যুদ্ধাপরাধী মীর কাসেমের ‘নিখোঁজ’ ছেলেকে নিয়ে প্রশ্নের মুখে ব্রিটিশ সম্প্রচারমাধ্যম চ্যানেল ফোরের একজন প্রযোজকের উদ্দেশ্যে করা মন্তব্যের জন্য দুঃখপ্রকাশ করেছেন টিউলিপ সিদ্দিক।

ইরানে কারাবন্দি এক ব্রিটিশ নাগরিকের মুক্তির দাবিতে শনিবারের ওই সমাবেশে চ্যানেল ফোরের প্রতিবেদক অ্যালেক্স টমসন গত বছর অগাস্ট থেকে নিখোঁজ মীর আহমেদ বিন কাসেমকে নিয়ে প্রশ্ন করেন। তিনি ব্রিটিশ এমপি, বাংলাদেশের নন বলে বিষয়টি এড়িয়ে যেতে চান টিউলিপ।

এরপরও ওই প্রতিবেদক পিছু না ছাড়ায় এক পর্যায়ে তার প্রযোজক সন্তানসম্ভবা ডেইজি অ্যালিফিকে টিউলিপ বলেন, “এখানে আসার জন্য ধন্যবাদ ডেইজি। আশা করি ভালোভাবে তোমার সন্তানের জন্ম হোক, কারণ সন্তান জন্মদান খুব কঠিন।”

লন্ডনে এক সমাবেশে টিউলিপ সিদ্দিক লন্ডনে এক সমাবেশে টিউলিপ সিদ্দিক এই মন্তব্যের মধ্য দিয়ে টিউলিপ ‘দৃশ্যত সন্তান জন্মদান নিয়ে হুমকি দিয়েছেন’ বলে প্রতিবেদনে উল্লেখ করেন টমসন।

ওই অনুষ্ঠানের সম্পাদক বেন ডে পিয়ার বলেন, বিষয়টি নিয়ে এমপি টিউলিপকে বলার পাশাপাশি লেবার পার্টিতে অভিযোগ দিয়েছেন তিনি।

এরপর ওই মন্তব্যের জন্য দুঃখপ্রকাশ করে টুইটারে এক বিবৃতিতে টিউলিপ বলেছেন, “চ্যানেল ফোরের প্রযোজককে করা মন্তব্যের জন্য আমি দুঃখপ্রকাশ করছি।”

ওই পরিস্থিতি বিরূপ মনে হওয়ায় তা সামালে অপ্রস্তুত বোধ করার কথা স্বীকার করে তিনি লিখেছেন, “আমি কখনও তাকে কষ্ট দিতে চাইনি। আশা করছি, বিষয়টি তিনি ক্ষমাসুন্দর দৃষ্টিতে দেখবেন।”

ব্রিটিশ দৈনিক গার্ডিয়ান লিখেছে, গুপ্তচর বৃত্তির অভিযোগে দুই বছর ধরে ইরানে কারাবন্দি নাজানিন জগহারি-র‌্যাটক্লিফের মুক্তি দাবিতে চলমান আন্দোলনে সামনের কাতারে রয়েছেন টিউলিপ সিদ্দিক। তিনি লন্ডনের যে এলাকার এমপি, সেই হ্যাম্পস্টিডের ভোটার নাজানিন। ২০১৫ সালে তেহরানে মেয়েসহ গ্রেপ্তার হন নাজানিন, এরপর গুপ্তচরবৃত্তির অভিযোগে তাকে পাঁচ বছরের কারাদণ্ড দেওয়া হয়।

তার মুক্তি দাবিতে আয়োজিত ওই সমাবেশে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ভাগ্নি টিউলিপের বক্তব্য নেওয়ার মধ্যে আহমেদ বিন কাসেমের বিষয়ে প্রশ্ন করেন চ্যানেল ফোরের প্রতিবেদক টমসন। যুদ্ধাপরাধে মৃত্যুদণ্ড কার্যকর হওয়া জামায়াত নেতা মীর কাসেম আলীর আপিলের রায় ঘোষণার পর গত বছর ১০ অগাস্ট ব্যরিস্টার আহমেদ বিন কাসেমকে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা তুলে নিয়ে যায় বলে তার পরিবারের অভিযোগ।

ঢাকায় এক মতবিনিময় অনুষ্ঠানে বঙ্গবন্ধুর নাতনি টিউলিপ সিদ্দিক ঢাকায় এক মতবিনিময় অনুষ্ঠানে বঙ্গবন্ধুর নাতনি টিউলিপ সিদ্দিক চ্যানেল ফোরের প্রতিবেদক ওই প্রসঙ্গ তুললে টিউলিপ তার কাছে জানতে চান, তিনি (বিন কাসেম) ব্রিটেনের নাগরিক বা হ্যাম্পস্টিডের নাগরিক কি না, তিনি কোনোটাই নন।

তিনি বলেন, “আমি লেবার পার্টি থেকে হ্যাম্পস্টিড ও কিলবার্নের এমপি, আমি ব্রিটিশ পার্লামেন্টের একজন সদস্য। এ বিষয়ে সতর্ক থাকুন।

“আমি বাংলাদেশি নই এবং যে ব্যক্তির কথা আপনি বলছেন তার বিষয়ে আমার কোনো ধারণা নেই। এটাই আমার শেষ কথা।”

এরপরেও টিউলিপকে ছাড়তে চাচ্ছিলেন না ওই প্রতিবেদক। ঘটনার ভিডিওতে দেখা গেছে, টিউলিপকে রক্ষায় একজন এগিয়ে আসেন। তখন অন্যদিকে চলে যান তিনি। 

 

তারপরেও বিষয়টি নিয়ে কথা হওয়ার এক পর্যায়ে চ্যানেল ফোরের প্রযোজক ডেইজিকে ওই কথা বলেন তিনি।

বিবৃতিতে আহমেদ বিন কাসেমকে নিয়ে প্রশ্নের বিষয়ে টিউলিপ বলেছেন, “চ্যানেল ফোরের নিউজ রিপোর্ট এবং শনিবারের ঘটনা নিয়ে আমি স্পষ্ট করে বলছি, আমার জন্ম লন্ডনে এবং ব্রিটিশ পার্লামেন্টের সদস্য হিসেবে আমি সেবা দিয়ে যাচ্ছি।

“হ্যাম্পস্টিড অ্যান্ড কিলবার্নের বাসিন্দা, যারা আমাকে নির্বাচিত করেছে, তাদের জন্য কিছু করাই আমার কর্মকাণ্ডের লক্ষ্য। এটা সত্য যে বাংলাদেশে আমার পরিবারের কিছু সদস্য রাজনীতিতে জড়িত, যা দীর্ঘ দিন সবার জানা এবং বিষয়টি আমি গোপনও করিনি।

“বাংলাদেশের রাজনীতিতে প্রভাব বিস্তারের ক্ষমতা বা উদ্দেশ্য কোনোটাই আমার নেই।”

শেয়ার করুন: Facebook Twitter Google LinkedIn Pinterest Print Email

মন্তব্য ফিড সাবস্ক্রাইব করুন মন্তব্যসমূহ (0 মন্তব্য প্রকাশ হয়েছে):

মোট: | প্রদর্শন:

মন্তব্য প্রকাশ করুন comment

  • Bold
  • Italic
  • Underline
  • Quote
  • email Email to a friend
  • print প্রিন্ট সংস্করণ
  • Plain text সরল পাঠ্য
এই নিবন্ধটি জন্য কোন ট্যাগ নেই
এই সংবাদটি মূল্যায়ন করুন
0