প্রচ্ছদ | ইসলাম | ৫০ হাজার টাকা অগ্রিম না দেয়াতে মাহফিলে আসেননি প্রধান বক্তা মাও: হাফিজুর রহমান কুয়াকাটা

৫০ হাজার টাকা অগ্রিম না দেয়াতে মাহফিলে আসেননি প্রধান বক্তা মাও: হাফিজুর রহমান কুয়াকাটা

image

নোয়াখালীর চাটখিলে একদিন ব্যাপী ওয়াজ মাহফিলে প্রধানবক্তা হাফিজুর রহমান (কুয়াকাটা) অগ্রিম টাকা নিয়ে চাটখিলে ওয়াজে আসেনাই। শনিবার রাতে পৌরসভার ২নং ওয়ার্ড সুন্দরপুরে এ ঘটনা ঘটেছে।এতে এলাকাবাসীর মধ্যে ক্ষোভ বিরাজ করছে। ঘটনাটির সত্যতা নিশ্চিত করেছেন চাটখিল পৌরসভার মেয়র চাটখিল মোহাম্মদ উল্লাহ পাটোয়ারী।

স্থানীয় এলাকাবাসী ও মাহফিল কমিটি জানান, এই আয়োজনে বিগত কয়েক বছর ধরে এখানে ওয়াজ মাহফিল করে আসছিল স্থানীয় এলাকাবাসী।এবার মাহফিলে হাফিজুর রহমান (কুয়াকাটা)কে প্রধানবক্তা হিসেবে আমন্ত্রণ জানানো হয়। সেই অনুযায়ী তার সাথে ১০ হাজার টাকা বিনিময়ে চুক্তিও করা হয়।

এছাড়া হাফিজুর রহমান সিদ্দিকীকে প্রধান বক্তা দিয়ে গত মাহফিল শুরুর এক সাপ্তাহ আগ থেকে এলাকায় মাইকিং ও বিভিন্ন পোষ্টার বিলি করা হয়। প্রচার-প্রচারণা শেষে শনিবার এলাকায় মাহফিল শুরু হয়। বিকাল থেকে ওয়াজ মাহফিলে যোগদান করতে দূর দূরান্ত থেকে ধর্মপ্রাণ মুসল্লিরা জমায়েত হতে থাকে। মাহফিল শুরু করলে রাত ৯টার দিকে প্রধান বক্তা হাফিজুর রহমান (কুয়াকাটা) না আসায় লোকজন উত্তেজিত হয়ে পড়ে।

এ ব্যপারে মাহফিল কমিটির সদস্যরা বলেন, হাফিজুর রহমান (কুয়াকাটা) আমাদের কাছে ৪০ হাজার টাকা অগ্রিম চাইছিলেন। কিন্তু আমরা ১০ হাজার টাকা দিয়ে বাকি টাকা মাহফিল সম্পূর্ণ শেষে দিবো বলি, হয়তোবা আমরা সম্পূর্ণ টাকা না দেয়ার কারণেই তিনি আসেনাই।

এদিকে, মঙ্গলবার বিকালে পৌরসভা মেয়র মোহাম্মদ উল্লাহ পাটোয়ারীর সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি এ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেন। তবে কি কারণে মাওলানা মাহফিলে আসেন নাই সেটা বলতে পারেন নাই। তিনি আরো বলেন, মাওলানা তারিখ দিয়ে ওয়াজ মাহফিলে না আসায় আয়োজক এবং মুসল্লিরা মন খারাপ করেছেন। তবে বর্তমানে অবস্থা স্বাভাবিক রয়েছে বলেও জানান তিনি।

তবে না আসার কারণ জানতে মাওলানা হাফিজুর রহমান সিদ্দিকীর সাথে একাধিকবার যোগাযোগ করা হলে তিনি ফোন রিসিভ করেনি।

উল্লেখ্য, মাওলানা হাফিজুর রহমান সিদ্দিকীর বিরুদ্ধে ওয়াজ মাহফিলে না যাওয়ার আরো অভিযোগ রয়েছে। তিনি গত ২৯ নভেম্বর নোয়াখালীর সোনাইমুড়ীতে একদিন ব্যাপী ওয়াজ মাহফিলে প্রধান বক্তা হাফিজুর রহমান (কুয়াকাটা) না আসায় প্যান্ডেল ভাংচুরের ঘটনা ঘটেছে। বগাদিয়া কেন্দ্রীয় মসজিদ কমিটির ভারপ্রাপ্ত কোষাধ্যক্ষ ও ওয়াজ মাহফিল আয়োজক কারী রাকিব উদ্দিন জানান, মসজিদের ইমাম রেয়াজুল ইসলামের মাধ্যমে হাফিজুর রহমান (কুয়াকাটার) সাথে যোগাযোগ করা হয়। ৪০ হাজার টাকা দেওয়া হয়। বক্তা ওয়াজ মাহফিলে না আসায় ঐ ইমাম পলাতক রয়েছে।

শেয়ার করুন: Facebook Twitter Google LinkedIn Pinterest Print Email

মন্তব্য ফিড সাবস্ক্রাইব করুন মন্তব্যসমূহ (0 মন্তব্য প্রকাশ হয়েছে):

মোট: | প্রদর্শন:

মন্তব্য প্রকাশ করুন comment

  • Bold
  • Italic
  • Underline
  • Quote
  • email Email to a friend
  • print প্রিন্ট সংস্করণ
  • Plain text সরল পাঠ্য
এই নিবন্ধটি জন্য কোন ট্যাগ নেই
এই সংবাদটি মূল্যায়ন করুন
0